পাকিস্তানের সাবেক তারকা ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদি কয়েক বছর আগে জাতীয় দল থেকে অবসর নিয়েছেন। তিনি জাতীয় দল থেকে অবসর নিলেও এখনো বিভিন্ন লীগে খেলে থাকেন। এই সাবেক তারকা ক্রিকেটার বর্তমান সময়ে অনেক সেবা ধর্মী কাজের সঙ্গে যুক্ত আছেন। এমনকি তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও দেখাশুনা করেন। এদিকে, এই সাবেক তারকা ক্রিকেটার প্রায় সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা বিষয় তুলে ধরেন। এবার তেনমনি তিনি একটি মাদ্রাসায় যাওয়ার পর বেশ কিছু কথা তুলে ধরেছেন।

পাকিস্তানি ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে।
সেখানে দেখা যাচ্ছে- ’জামিয়া হাসসান ইবনে সাবেত (রা.)’ নামের একটি মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখছেন তিনি।
বক্তব্যের শুরুতে ছোট কোমলমতি শিক্ষার্থীদের তিনি বলেন, তোমরা ইসলামের কত বড় কাজ করছ, তা হয়ত জান না। আমার চারটি মেয়ে-আলহামদুলিল্লাহ; তবে যদি কোনো ছেলে থাকতো তাহলে তোমাদের সঙ্গে এখানে বসে থাকতো (মাদ্রাসায় পড়াতাম)।

বর্তমানে দুটি জায়গায় মহান আল্লাহ ইসলামকে জীবিত রেখেছেন- তার একটি মাদ্রাসা বলে মন্তব্য করেন শহীদ আফ্রিদি।
শিক্ষার্থীদের তিনি আরও বলেন, তোমরা পিতা-মাতাকে যেভাবে সম্মান করো ঠিক সেভাবে শিক্ষকদের সম্মান করলে দুনিয়া-আখিরাত উভয় জগতেই সফলতা অর্জন করতে পারবে।
শিক্ষার্থীরা ইসলামের যে মহান ইলম ও জ্ঞান অর্জন করছে তা গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে দেওয়ার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, রাসুল (সা.) যে দাওয়াতী কাজ করেছেন সেটা এখন আমাদের করতে হবে; কেননা তারপরে তো আর কোনো নবী ও রাসুল পৃথিবীতে আসবেন না। তবে দাওয়াতের ক্ষেত্রে অবশ্যই ভালোবাসা ও ঔদার্য বজায় রাখতে হবে, কঠোরতা নয়।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের এই তারকা ক্রিকেটার একটা সময় অসংখ্য ম্যাচে খেলেছেন। দেশ বিদেশে তার অসংখ্য ভক্ত রয়েছে। তবে তিনি জাতীয় দল থেকে অবসর নিলেও এখনো অনেক দেশের লীগে প্রায় সময় খেলে থাকেন। এছাড়া তিনি অনেক সামাজিক কাজের সঙ্গে নিজেকে যুক্ত রয়েখেছেন। আর তিনি প্রায় সময় জামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক তথ্য তুলে ধরেন। তেমনি এবার এক ভিডিও বার্তায় এই সকল কথা তুলে ধরেছেন তিনি।