সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বর্তমান সময় তরুণ তরুণীরা প্রেমের সম্পর্কে জড়ান। এমনকি একে অপরকে সমানা সমানি না দেখেই তারা এই অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে একটা সময় বড় রকমের বিপদে পড়েন। অনলাইনে পরিচয় হয়ে প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে অনেকে তাদের মূল্যবান সম্পদ হারানয়। এছাড়া কিছু অসাধু ব্যক্তিদের পাল্লায় পরে অনেক তরুণী বড় রকমের বিপদে পড়েন। এবার তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে যে প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে এক কিশোরী বড় রকমের বিপদে পড়েন।

ঈদের দিন সন্ধ্যা। ময়মনসিংহের মুক্তাগাছার এক কিশোরীর বার্তা আসে বাংলাদেশ পুলিশের ফেসবুক পেজে। তাতে ওই কিশোরী লেখে- ’আমাকে অ’প’হ’র’ণ করে মু’ক্তিপণ দাবি করা হচ্ছে। মু’ক্তিপণ না দিলে দৌলতদিয়া প’তি’তা’ল’য়ে বি’ক্রি করে দেবে বলে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আমাকে বাঁ’চান।’ এমন বার্তা পেয়ে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতে মুক্তাগাছা থানার ওসি মোহাম্মদ দুলাল আকন্দকে নির্দেশ দেয় পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং।

প্রযুক্তির সহায়তায় ও প্রাথমিক তদন্তে মুক্তাগাছার ওসি জানতে পারেন মেয়েটি রাজবাড়ীর পাংশা থানার একটি এলাকায় রয়েছে। পরে থানাপুলিশ, জেলা পুলিশ, সাইবার পুলিশ ও মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের একাধিক ইউনিট অভিযান চালিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় পাংশার সরিষা ইউনিয়নের পিড়ালীপাড়া গ্রাম থেকে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে। সেই সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয় কিশোরীর কথিত প্রেমিক ও অ’প’হ’র’ণ’কা’রী দুর্জয়কে।

পুলিশ সদর দপ্তর থেকে গতকাল পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে আরও বলা হয়, মেয়েটিকে উদ্ধারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, কয়েক মাস আগে অনলাইনে দুর্জয়ের সঙ্গে তার পরিচয়। সেটি পরে প্রেমের সম্পর্কে গড়ায়। এক পর্যায়ে বাড়িতে কাউকে না জানিয়ে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যায় মেয়েটি। দুর্জয় তাকে প্রথমে নিজের বাড়িতে নিয়ে যায়। এর পর রেখে আসে তার নানাবাড়িতে। সেখান থেকেই কিশোরীকে বিক্রি করে দেওয়ার পরিকল্পনা আঁটে দুর্জয়।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এ কাজে দুর্জয়ের সঙ্গে আরও কেউ জড়িত। এলাকার কোনো দু’ষ্ট’চ’ক্র মেয়েটিকে বিক্রির হু’ম’কি দিয়ে তার পরিবারের কাছ থেকে সুবিধা আদায় করতে চেয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। জড়িত থাকতে পারে দুর্জয়ের পরিবারের সদস্যরাও। তবে এ বিষয়ে তদন্ত করে অ’পরাধীদের খুঁজে বের করে শিগগিরই আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ সদর দপ্তর।

উল্লেখ্য, অনলাইনের মাধ্যমে প্রায় সময় অসংখ্য কিশোরী প্রতারিত হয়ে থাকে। আর এই অবৈধ প্রেমের কারণে একটা সময় কিশোরীরা বড় রকমের বিপদে পরে। এমনকি অনেকের জীবনে বড় রকমের বিপদ নেমে আসে। আর এবার এই কিশোরী সঠিক সময়ে বার্তা না দিলে তার জীবনেও বড় রকমের বিপদ নেমে আসতো মনে করছেন অনেকে। এ জন্য ছেলে মেয়ে অনলাইনে সব সময় কি করছে তা অবশ্যই খোঁজ নিতে হবে।