দেশের বিভিন্ন স্থানে বিয়ে নিয়ে নানা রকম ঘটনা ঘটে থাকে। অনেক সময় কনের সঙ্গে অন্য ছেলের সম্পর্ক থাকে এমন সংবাদও উঠে আসে। আর এই প্রেমের কারণে অনেক সময় বিয়েও ভে’’ঙে যায়। এছাড়া বিয়ের আসর থেকে বরও পালিয়ে যায় এমন ঘটনাও ঘটে। তেমনি এবার এক বিয়ের আসর থেকে বর দৌড়ে পালাল। তবে কি কারণে বর দৌড়ে পালাল তা নিয়ে বেশ আলোচনা শুরু হয়। এবার কারণ প্রকাশ্যে এলো।

রাজধানী ঢাকার ধামরাই উপজেলার সুয়াপুর ইউনিয়নের ঈশাননগর এলাকায় বিয়ে করতে যাচ্ছেন প্রেমিক। বরযাত্রী নিয়ে রওনা দেয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে প্রেমিকা এসে হাজির বরের বাড়িতে। অবস্থা বেগতিক বুঝতে পেরে বিয়ের পোশাকেই দৌড়ে পালালেন বর।

গতকাল মঙ্গলবার (৮ জুন) সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, অভিযুক্ত প্রেমিক সুয়াপুর ইউনিয়নের ঈশাননগর এলাকা মো. আব্দুল খালেকের ছেলে মো. দিদার হোসেন। তিনি মানিকগঞ্জ পোড়রা খান বাহাদুর কলেজের ডিগ্রি পরীক্ষার্থী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ভুক্তভোগী ওই তরুণীর সঙ্গে একই এলাকার দিদার হোসেনের প্রেমের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। বিয়ের আশ্বাসও দিয়েছেন ছাত্রীকে। কিন্তু এখন দিদার তাকে বিয়ে না করে উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের ভালুম এলাকার এক তরুণীকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন। গো’প’ন খবরের ভিত্তিতে জানতে পেরে প্রেমিকা একহাতে বি’ষে’র বো’ত’ল আর অপর হাতে কা’ফ’নে’র কাপড় নিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে এসে হাজির হন।

এ সময় বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করা ভুক্তভোগী ওই তরুণী স্লোগান দেন ‌’দাবি আমার একটাই, স্বামী চাই, স্বামী চাই’। ’হয় বিয়ে না হয় নিজিকে শে’ষ করবো’। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আমরণ অনশন চলবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে অভিযুক্ত দিদারের বাবা আব্দুল খালেক বলেন, ছেলের সঙ্গে ওই মেয়ের প্রেমের কথা জানলে অন্য মেয়ের সঙ্গে বিয়ে ঠিক করতাম না। এই অবস্থায় ভেবে স্থির করতে পারছি না কী করব।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য মো. জয়নাল আলী জানান, পরিস্থিতি খুবই জটিল হয়ে গেছে। সমঝোতা করার জন্য আমি চেষ্টা করছি।

এদিকে, ওই তরুণীর এলাকার লোকরা বলছেন ওই ছেলের সঙ্গেই তার বিয়ে দিতে হবে। আর ওই তরুণী এখনও বিয়ের দাবিতে অনশন করে চলেছেন। তরুণী বলেন আমাকে বিয়ে না করলে আমি নিজেকে শে’ষ করে ফেলবো। এই তরুণী ও বিয়ের আসর থেকে দৌড়ে পালাল বর কে নিয়ে বর্তমানে বেশ আলোচনা শুরু হয়েছে।