বিয়ের পর প্রায় সময় শোনা যায় স্ত্রী তার স্বামীকে রেখে পালিয়ে যায়। মূলত ওই নারীর সঙ্গে অন্য পুরুষের সম্পর্ক থাকলে এমন ঘটনা ঘটে। এবার এক স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তিনি বাসর রাতেই বরকে রড দিয়ে শেষ করেছেন। আর স্বামীকে শেষ করার পরই সেই স্ত্রী পালিয়েছে। এই ঘটনা ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের বিজনৌরে। এবার এই ঘটনা সম্পর্কে সংবাদ প্রকাশ্যে এলো।

বিয়ের রাতেই মূল্যবান সামগ্রী, টাকা-পয়সা নিয়ে পালিয়ে গেলেন এব কনে। শুধু তাই নয়, আগের রাতে রড দিয়ে নিজের স্বামীকে বে//ধ//ড়//ক ’’মা//র//ধ//রও//’’ করেন ওই নারী।

জানা গেছে, বিজনৌরের বাসিন্দা ওই যুবকের সঙ্গে ওই নারীর পরিচয় করিয়ে দেন এক ঘটক। ওই ঘটক যুবককে জানায়, মেয়েটির বাড়ি হরিদ্বার। এরপরই দুইজনে মন্দিরে গিয়ে বিয়ে করেন। পরে নববিবাহিত স্ত্রীকে নিয়ে গ্রামে ফেরে ওই যুবক। এরপর গ্রামের বাসিন্দারাই ধুমধাম করে দু’জনের বিয়ে দেন। কিন্তু আসল ঘটনা ঘটে বিয়ের দিন রাতে। হঠাৎ করেই যুবকের ওপর চড়াও হন তার স্ত্রী। লোহার রড দিয়ে ’’বে//ধ//ড়//ক’’ ’’মা//র//তে’’ থাকেন।

এখানেই শেষ নয়, ঘরে রাখা নগদ ২০ হাজার টাকা এবং দু’লাখ রুপির গয়না নিয়ে পালিয়ে যান। পরের দিন সকালে খবরটি জানতে পেরে অনেকেই অবাক হয়ে যান।

এ ব্যাপারে ওই যুবক জানান, রাতে হঠাৎ করেই স্ত্রী তাকে মারতে থাকেন। কারণও বুঝতে পারেননি। এরপরই টাকা-পয়সা ও গয়না নিয়ে চম্পট দেন ওই নারী।

ঘটনাটি নিয়ে ইতোমধ্যে পুলিশে অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। প্রাথমিক সন্দেহে অনুমান, ওই যুবকের কাছ থেকে টাকা হাতাতেই এই সিদ্ধান্ত। পুরো ঘটনাটাই আসলে চক্রান্ত। আপাতত ওই নারী ও ঘটকের খোঁজে তদন্ত শুরু হয়েছে।

এর আগে শাহাজানপুরেও এরকমই একটি ঘটনা ঘটেছিল। যেখানে বিয়ের মাত্র পাঁচ ঘণ্টা পরেই টাকা-পয়সা ওগয়না নিয়ে পালিয়ে যান কনে। বিজনৌরেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি।

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন


এদিকে, এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর থেকে ওই স্ত্রীকে ধরার চেষ্টা করছে সেখানকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। অনেকে মনে করছেন ওই নারীর হয়তো আগে কোথাও সম্পর্ক রয়েছে। আর এই সম্পর্কের কারণে সে তার স্বামীকে বাসর রাতেই শে’ষ করে পালিয়েছে।