জাপানি রাষ্ট্রদূত পুলিশ বিরুদ্ধে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা ভিত্তিহীন : পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন

আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ করার জন্য বিভিন্ন দেশ পক্ষ থেকে তাগিত দেওয়া হচ্ছে। তাদের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে আগামী সংসদ নির্বাচন যদি সুষ্ঠু ,অবাধ ও সকল দলের অংশগ্রহন মাধ্যমে অনুষ্ঠিত না হলে দেশের গণতান্ত্রিক পরিস্থিতিতে ব্যাপক সংকট তৈরী হতে পারে। যা দেশের উন্নয়নে বাধা সৃষ্টি ও গনতন্ত্রের হু/মকির সৃষ্টি হতে পারে। নির্বাচনে পুলিশ বাহিনীকে নিয়ে জাপানের রাষ্ট্রদূতের বক্তব্যে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে যা জানানো হলো।

জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ পুলিশ সম্পর্কে জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকির বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন। তার বক্তব্যের কোনো ভিত্তি নেই বলেও জা/নানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও অতিরিক্ত আইজিপি মো. মনিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, ১৪ নভেম্বর গুলশানের একটি হোটেলে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর গভর্নেন্স স্টাডিজ (সিজিএস) আয়োজিত ‘মিট অ্যাম্বাসেডর’ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে প্রশ্নোত্তর পর্বে জাপানি রা/ষ্ট্রদূত পুলিশ বিরুদ্ধে যে ব/ক্তব্য দিয়েছেন তা ভি/ত্তিহীন। তিনি অযাচিত অভিযোগ তুলে ধরেছেন।

বিষয়টি বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। তার বক্তব্য বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি সদস্যকে অত্যন্ত বিব্রত ও হতবাক করেছে। বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন তার বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানায়।

অনুষ্ঠানে এক প্রশ্নোত্তর পর্বে রাষ্ট্রদূত বলেন, আমি শুনেছি গত নির্বাচনের আগের রাতে পুলিশ কর্মকর্তারা ব্যালট বাক্স ভর্তি করেছিলেন। অন্য কোনো দেশে এমন ঘটনা শুনিনি। তবে কীসের ভিত্তিতে বা কী তথ্যের ভিত্তিতে তিনি কথা বলেছেন তা বুঝতে পারেনি পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন।

প্রসঙ্গত, নির্বাচনে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে রাষ্ট্রদূতের বক্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন। অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে কিসের ভিত্তিতে তিনি এমন বিবৃতি দিলেন তার ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *