আমাদের আশেপাশের পরিবেশটাই এমন, অনেক কিছু ভাবতে বাধ্য করে দেয় : টয়া

নাট্যাঙ্গনের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মুমতাহিনা টয়া। অসংখ্য জনপ্রিয় নাটক, টেলিফিল্মে অভিনয়ের করে ইতিমধ্যে ভক্ত ও দর্শকদের মন জয় করেছেন তিনি। বিভিন্ন বিষয়কে কেন্দ্র করে প্রায় আলোচনায় থাকেন তিনি। এবার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কথা বলতে যেয়ে নিজের অভিজ্ঞতার শেয়ার করে যা জানালেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী।

ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও মডেল মুমতাহিনা টয়া। পরিবার ও সম্পর্ক নিয়ে তিনি বলেন, সম্পর্ক মানেই অম্ল-মিষ্টি রসায়ন। এতে যেমন সুখের অনুভূতি আছে, তেমনি আছে দুঃখ-লজ্জার পর্বও। আর সম্পর্কটা যদি স্বামী-স্ত্রীর হয়, তাহলে দুটো জিনিসের আধিক্য আছে। তারকারাও এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম নন।

তারকাদের সংসারেও ঝড় আসে, কেউ সামাল দেয়, কেউ ঝড়ের গতির সাথে সম্পর্ক হারিয়ে ফেলে। তবে কাজ ও সংসারের গুরুত্ব বুঝতে পারলে সমস্যা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে থাকে বলে মনে করেন এই অভিনেত্রী। তার মতে, যেকোনো পরিবারেই ঝগড়া-ঝামেলা হ/তেই পারে।

টয়া মন্তব্য করেন, ‘আমি যদি বলি আমার পরিবারে কোনো সমস্যা নেই, আমি শতভাগ সুখী সংসার করছি, এর চেয়ে বড় মিথ্যাচার আর হবে না। একটি সাধারণ দম্পতিরও মধ্যেও কিছু ঝামেলা বা সমস্যা থাকেই। এক ছাদের নিচে দুইজন মানুষ বসবাস করলে, ঠোকাঠুকি লাগবেই। এটা খুবই স্বাভাবিক।’

টয়া বিশ্বাস করেন যে তারকাদের ক্ষেত্রে ঝামেলা অন্য জায়গা থেকে উদ্ভূত হয়। তিনি বলেন, ‘দেখুন আমি নায়িকা, আমার স্বামী নায়ক। আমি যখন শুটিং সেটে যাই, একজন নায়িকা যতটা মনোযোগ পায় ঠিক একজন নায়কও সেটা পায়। দুজনেই একই স্তরে। আমার কাছে মনে হয়, কেউ কাউকে ছাড় দিতে চায় না। প্রত্যেকেই নিজের জায়গায়, নিজের সিদ্ধান্তে শক্তিশালী হতে চায়। রিল জগতে যে ভিন্ন ব্যক্তিত্ব বিদ্যমান, আমরা প্রায়শই বাস্তব জগতে বাস করি। আমরা ভাবি, আমি একজন! আমার সাথে এমন হবে কেন! আপনার এই জায়গা থেকে বেরিয়ে আসা উচিত।

টোরির চিন্তাধারায়, সাধারণ মানুষ ও তারকাদের মূল বোধের উৎপত্তিস্থল একই। তিনি বলেন, “আমরা মানুষ। আমাদেরও স্বাভাবিক মানুষের মতো আবেগ আছে, আমাদেরও ঈর্ষা, অহংকার সমস্যা আছে। আমাদের নিরাপত্তাহীনতা কাজ করে। আমি যদি দেখি আমার পার্টনার আমার চেয়ে অনেক ভালো কাজ করছে, ব্যাক টু ব্যা/ক কাজ করছে, আমি কিছুই করতে পারছি না মানুষের পছন্দ করার মতো; কিন্তু তখন আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগবো। এর থেকে আমি আমার স্বামীর সাথে খারাপ ব্যবহার করতে পারি বা আমি যেখানে কাজ করি তাদের সাথে খারাপ ব্যবহার করতে পারি। সেজন্য আমাকে নিজেকে বোঝাতে হবে যে আমি সত্যিই কোথায় আছি, আমার পার্টনার কোন অবস্থানে আছে।’

তারকা দম্পতিদের মধ্যে জটিলতা তৈরিতে শোবিজ জগতেরও কিছুটা প্রভাব রয়েছে বলে মনে করেন টয়া। তিনি মন্তব্য করেন, ‘আমাদের ইন্ডাস্ট্রি এমন যে আমরা যাদের সঙ্গে কাজ হয়, তাদের সঙ্গে কাজ চালিয়ে যাই। নায়ক যদি বারবার কোনো নায়িকার সঙ্গে কাজ করতে থাকেন তাহলে ঘরের বউ একটু কষ্ট পেতে পারে। আমাদের আশেপাশের প/রিবেশটাই এমন, অনেক কি/ছু ভাবতে বাধ্য ক/রে দেয়। কিন্তু এ নিয়ে আমাদের নিজেদের সঙ্গে মানসিক যুদ্ধ চলছে।

প্রসঙ্গত, ব্যক্তিগত জীবনে অন্যান্য সাধারন মানুষের মতো তারকাদের জীবনে ঝামেলা হয় এটি বাস্তবতা মন্তব্য করেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। তবে তারকাদের জীবন কিছু বিষয় ভিন্ন হয়ে থাকে এটা অনেকে মানতে নারাজ।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *