হঠাৎ নিজ ফ্লাটে শিক্ষিকার লাশ, বেরিয়ে এলো ভিন্ন এক তথ্য

সম্প্রতি শিক্ষকরা নানা কারনে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। তবে অনেকা ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত সমস্যার কারনে বেশির ভাগই শিক্ষকরা এমন ঘটনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। হ/ত্যাকান্ডসহ বিভিন্ন অপরাধের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে এমন পরিস্তিতির হবে না বলে মন্তব্য করেন অনেকে। কুষ্টিয়া জেলা স্কুলের শিক্ষিকা হঠাৎ করে নিজ বাসায় খু/ন হয়েছেন ঘটনার বিষয়ে সম্পর্কে যা জানালেন পরিবার।

কুষ্টিয়া জেলা স্কুলের সিনিয়র শিক্ষিকা রোকসানা খানম (৫২) নিজ ফ্ল্যাটে খুন হয়েছেন। প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা দুর্বৃত্তরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে।

রোববার (৬ নভেম্বর) রাতে এ পৈশাচিক হ/ত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। সোমবার (৭ নভেম্বর) সকালে পুলিশ ওই শিক্ষকের রক্তাক্ত লা/শ উদ্ধার করে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, নগরীর ডি-ব্লক হাউজিংয়ের ছয় তলার ঝুলন্ত বারান্দার ছাদের গ্রিল কেটে শিক্ষিকা রোকসানার ফ্ল্যাটে প্রবেশ করে দুর্বৃত্তরা। পরে ধারালো অ/স্ত্র বা হা/তুড়ি দিয়ে শিক্ষিকা রোকসানাকে মাথায় আঘাত করে হ/ত্যা করে দুর্বৃত্তরা। মাথায় আ/ঘাতের পাশাপাশি তার মুখও থেঁতলে দেয় দুর্বৃত্তরা। পৈশাচিক হ/ত্যাকাণ্ডের পর দুর্বৃত্তরা ওই শিক্ষকের বাড়িতে ব্যবহৃত আলমারির তালা ভেঙ্গে জামাকাপড়সহ মামলা তছনছ করে।

আসবাবপত্র ও কম্পিউটারও ছড়িয়ে-ছিটিয়ে ছিল। স্বর্ণালংকার কিংবা টাকা খোয়া গেছে তা নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ। হ/ত্যার সঠিক কারণ জানা না গেলেও স/ন্ত্রাসী চক্র পূর্ব পরিকল্পিতভাবে এ হ/ত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ। নিঃসন্তান ওই শিক্ষিকা তার ছয়তলার ফ্ল্যাটের দ্বিতীয় তলায় একাই থাকতেন। তিনি ঐতিহ্যবাহী কুষ্টিয়া জেলা স্কুলের দিবা শাখার ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষিকা ছিলেন। তার স্বামী খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান শিশির যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলার এলজিইডিতে কমিউনিটি অর্গানাইজার হিসেবে কর্মরত।

খবর পেয়ে পুলিশ সোমবার সকালে রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে কুষ্টিয়া ২৫০ জেনারেল হাসপাতালের ম/র্গে ময়নাতদন্ত করে। পুলিশ-র‌্যাব ও পিআইবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এ ঘটনায় পুলিশ এখনো কাউকে আটক করতে পারেনি। তবে পুলিশ জানিয়েছে, তারা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করছে এবং জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে। খবর পেয়ে ছুটে আসেন ওই শিক্ষকের সহকর্মী, স্বজন ও স্থানীয় লোকজন।

এদিকে সংরক্ষিত ফ্ল্যাট বাড়িতে এই নারকীয় খু/নের ঘটনায় হাউজিং ডি ব্লক এলাকায় আ/তঙ্ক ছড়িয়েছে।

কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার খাইরুল আলম জানান, সর্বোচ্চ গুরুত্বের সঙ্গে পুলিশ, পিবিআই ও গোয়েন্দা টিম সমন্বিতভাবে তদন্ত করছে। ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার জোর চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

প্রসঙ্গত, ঘটনাটি পূর্ব পরিকল্পী বলে ধারনা করা হচ্ছে। তবে কারা এর সঙ্গে জড়িত সে বিষয়ে নিশ্চিত করতে পারনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *