এবার মধুচন্দ্রিমা নিয়ে নিজের পরিকল্পনার কথা জানালেন শেহতাজ

ছোট পর্দার আলোচিত অভিনেত্রী শেহতাজ মুনিরা হাশেম। একাধিক নাটক ও বিজ্ঞাপনের কাজ করে বেশ আলোচনায় আসেন তিনি। বিভিন্ন ঘটনার মাধ্যমে মাঝে মধ্যে আলোচনায় এসে থাকেন। সম্প্রতি দীর্ঘ দিনের প্রেমের ইতি টেনে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন আলোচিত এই অভিনেত্রী। প্রেম ও বিয়ের নিয়ে যে কথা জানালেন শেহতাজ।

শেহতাজ মুনিরা হাসেম। মডেল, উপস্থাপক ও অভিনেত্রী। গত শুক্রবার বিয়ের পিঁড়িতে বসেন তিনি। পাত্র গায়ক ও সঙ্গীত পরিচালক প্রীতম হাসান। তার সঙ্গে বিয়ে ও অন্যান্য বিষয়ে কথা হয়।

সাড়ে পাঁচ বছরের প্রেম। আপনারা দুজন একে অপরকে কিভাবে ?

একসঙ্গে একটি মিউজিক ভিডিও করার মাধ্যমে প্রীতমের সঙ্গে পরিচয়। তার ‘যাদুকর’ গানের ভিডিওতে মডেলিং করেছি। শুটিং সেটে খুব ভালো সময় কাটিয়েছি। এর পরপরই আমাদের প্রেমের সম্পর্ক শুরু হয়।

প্রেমের কথা প্রথমে কে বলেছিল, প্রীতম না/কি আপনি?

প্রীতম আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়নি; সরাসরি বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল। তারপর বন্ধুত্ব থেকে ভালোবাসা। এভাবেই ওর প্রতি আমার ভালো লাগা বাড়তে থাকে। আমাদের পথচলা ছিল না সাধারণ প্রেমিক-প্রেমিকাদের মতো। শোবিজের যেকোনো কাজে আমার মা সবসময় আমার পাশে থাকেন এটা অনেকেই জানেন। এমনকি প্রীতমের সাথে প্রথম দেখা হওয়ার দিনও আম্মু আমার সাথে গুলশানের একটি রেস্টুরেন্টে ছিল। প্রথম থেকেই পরিবার থেকে প্রীতমের সঙ্গে দেখা করতে নিষেধ করা হয়েছিল। আমরা প্রেমিকের চেয়ে বেশি বন্ধু ছিলাম। এমন নয় যে দুই পেমে মাসের বিয়ে হয়েছে। কথা বলতে বলতে আমরা একে অপরকে জানতে পেরেছি।

বিয়ের অনুষ্ঠানে দেরি কেন?

দীর্ঘদিন ধরে একে অপরকে জানার পর আমরা পারিবারিক সম্মতিতে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বিয়েটা অনেক আগেই ঠিক হয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু জুলাই মাসে আমার বাবা মা/রা যাওয়ায় বিয়ের তারিখ পিছিয়ে আগস্টে রাখতে হয়েছিল। এরপর আমার মাও অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। সর্বোপরি, এই বছর আমাদের বিয়ে করার কোনও ইচ্ছা ছিল না। কিন্তু মায়ের অনুরোধে বিয়েটা সম্পন্ন করেছি।

কোন ভাবনা থে/কে ডেস্টিনেশন ও/য়েডিং?

আমাদের পরিকল্পনা ছিল ডেস্টিনেশন ওয়েডিং করার। আউটডোরের ভাব ধরে রাখতে সিলেটের শ্রীমঙ্গলের মতো সুন্দর জায়গায় একটি রিসোর্ট বেছে নিন। অতিথিরা একদিন আগেই এখানে এসেছিলেন। সে জন্য মেহেন্দি অনুষ্ঠানও করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে আমার অনেক ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন। যে কারণে বিয়ের আয়োজনকে শুটিংয়ের মতো মনে হচ্ছে।

প্রীতমের কোন গুণগুলো আপনি পছন্দ করেন?

প্রীতম খুবই মেধাবী, ভদ্র। তার সততা, সরলতা আমাকে খুব আকর্ষণ করে।

আপনি আপনার হানিমুন কোথায় পরিকল্পনা করছেন?

সদ্য বিয়ে হয়েছে। হাতে কিছু কাজও আছে। সময় পেলে দুই মাস পর হানিমুনে জাপান যাব।

প্রসঙ্গত, দুজনের মধ্যে দীর্ঘ দিনের বোঝাপড়ার হওয়ার পর বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি বলে জানান আলোচিত এই অভিনেত্রী। তিনি বলেন, বিভিন্ন পারিবারিক সমস্যার কারনে বিয়ে করার কথা থাকলেও সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *