প্রেমিকের দুঃখ দূর করতে এবার সেই প্রেমিকের বাবাকেই বিয়ের সিদ্ধান্ত তরুণীর

তরুণী তরুণী প্রেমের সম্পর্কে জড়ানোর পর তারা স্বপ্ন দেখা একটা সময় তারা বিয়ে করে এক সঙ্গে থাকবে। তবে অনেক সময় তরুণ তরুণীর সেই স্বপ্ন পূরণ হয় আবার অনেক সময় সেই স্বপ্ন আর পূরণ হয় না। তবে প্রেমিকের দুঃখ দূর করতে এবার এক প্রেমিকা যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা নিয়ে নানা রকম আলোচনা শুরু হয়েছে। ওই তরুণী তার প্রেমিকের বাবাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই ঘটনা ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে প্রেমিকের কি দুঃখ দূর করতে প্রেমিকা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে এমন প্রশ্ন তুলছে নেট ইউজরা। এবার এই বিষয়ে বিস্তারিত জানা গেল।

প্রেমিককে নয়, প্রেমিকের বাবাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এক তরুণী। এই অসম বিয়ের সিদ্ধান্তের পেছনে কারণটাও কম চমকপ্রদ নয়। প্রেমিককে দুঃখ দূর করতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান ওই তরুণী।

টিকটকে পোস্ট করা এক ভিডিওতে প্রেমিকের বাবাকে বিয়ে করার কারণ জানিয়েছেন ওই তরুণী।

তিনি জানান, সম্প্রতি তার প্রেমিকের মা মারা গেছেন। মায়ের জন্য ভীষণ মন খারাপ থাকে প্রেমিকের। তাই প্রেমিকের এই দুঃসময়ে তার পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন ওই তরুণী। প্রেমিকের দুঃখ দূর করতে যেকোনো কিছু করতে পারেন বলে ভিডিওতে দাবি করেছেন ওই তরুণী।

ভিডিওতে তিনি বলেন, আমার প্রেমিকের মা মা”রা গেছেন। আমি তাকে দুঃখী দেখতে চাই না। তাই আমি তার বাবাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি যেন আমার প্রেমিক তার মাকে ফিরে পায়।

এদিকে ওই ভিডিও পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গে তা ভাইরাল হয়। নেটিজেনরা ওই তরুণীর সিদ্ধান্তে একদম হ’ত’বা’ক হয়ে গেছে। অবশ্য কেউ কেউ প্রেমিকের দুঃখ দূর করতে তার এই আ’ত্ম’ত্যা’গের প্রশংসা করেছেন।

টিকটকে পোস্ট করা ওই ভিডিওতে এ পর্যন্ত ১১ লাখের বেশি মানুষ লাইক দিয়েছেন। ভিডিওতে মন্তব্য করেছেন প্রায় ৩৮ হাজার মানুষ। আর ভিডিওটি দেখা হয়েছে ৮৮ লাখের বেশিবার।

এদিকে, সেই প্রেমিক কি এই প্রস্তাবে রাজি হয়েছে এমন প্রশ্ন তুলছেন অনেকে। তবে প্রেমিকার এমন সিদ্ধান্তের অনেকে খুশি হয়েছে। আবার অনেকে অবাক হয়েছে এই ভেবে যে প্রেমিকা কি কারণে এমন সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে এই বিষয়ে প্রেমিকা খোলাসা করেছেন। তিনি নিজেই তা ভিডিও এর মাধ্যমে জানিয়েছেন যে তার প্রেমিকের মা না ফেরার দেশে চলে যাওয়ার কারণে তাদের পরিবারে নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়। আর এই সময় প্রেমিকা তার প্রেমিকের দু:খ দূর করতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *