আমার জামা কাপড়-জুতো টানতো সালমান খান, আমিই তাকে বলিউডে সুযোগ করে দিয়েছি: জ‍্যাকি শ্রফ

বলিউডের তারকা নায়ক সালমান খান একদিনে তারকা খ্যাতি পাননি। তিনি বলিউডে এসে প্রথম দিকে অনেক কষ্ট করেছেন। তবে তিনি তার সিনিয়র অভিনেতা অভিনেত্রীদের সব সময় সম্মান করতেন। এদিকে, এই বলিউড তারকার সঙ্গে দীর্ঘদিনের পরিচয় রয়েছে জ‍্যাকি শ্রফের। সালমান খানা যখন মিডিয়ায় আসেন সেই সময় থেকেই জ‍্যাকি শ্রফের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন। এমনকি বর্তমান সময়ে কোনো ঘটনা ঘটলে তা সালমান খান জ‍্যাকি শ্রফকে জানান। আর এবার নায়ক সালমা খানকে নিয়ে বেশ কিছু কথা বলেছেন জ‍্যাকি শ্রফ।

আমার জামা কাপড়-জুতো টানতো সালমান খান। আমিই তাকে বলিউডে সুযোগ করে দিয়েছি, এমনটাই দাবি করেছেন জ‍্যাকি শ্রফ। বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে বদরাগী মেজাজের জন্য বেশ দুর্নাম রয়েছে সালমান খানের। তিনি কাউকে তেমন পাত্তা দেন না। কিন্তু ইন্ডাস্ট্রিতে এমন কিছু মানুষ আছেন যাদের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ সালমান। এমনি একজন হলেন অভিনেতা জ‍্যাকি শ্রফ। দুজনের বন্ধুত্বের সম্পর্কও দীর্ঘদিনের। খবর বাংলা হান্টের।

অনেকেই জানেন না অভিনেতা হওয়ার আগে একজন মডেল হিসেবে ইন্ডাস্ট্রিতে পা রেখেছিলেন সালমান খান। তারপর সহ-পরিচালক হয়েও বেশ কিছুদিন কাজ করেছেন তিনি। অপরদিকে জ‍্যাকির তখন বলিউডে ভালোই রমরমা। সেই সময় থেকে দুজনের বন্ধুত্ব জমতে শুরু করে।

জ‍্যাকি শ্রফ দাবি করেছেন, আমিই সালমানকে বলিউডে সুযোগ করে দিয়েছি। আমি ওকে তখন থেকে চিনি যখন ও একজন মডেল আর সহ-পরিচালক ছিল। ‘ফলক’ ছবির শুটিংয়ের সময় আমার পোশাক আর জুতো সামলানোর দায়িত্ব ছিল সালমানের ওপর। ছোট ভাইয়ের মতোই আমার দেখভাল করতো ও।

এদিকে জ‍্যাকি জানান, সালমানের সহ-পরিচালক হিসেবে কাজ করার সময়গুলোতে তার হয়ে তিনিই কাজ খুঁজতেন। যে প্রযোজকদের সঙ্গে তিনি কাজ করতেন তাদেরকে অভিনেতার ছবি দেখাতেন জ‍্যাকি। শেষমেশ কে সি বোকাডিয়ার দৌলতে বলিউডে প্রথম ব্রেক পান সালমান। জ‍্যাকির কথায়, ম‍্যায়নে পেয়ার কিয়া সালমানকে জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছিল ঠিকই কিন্তু আমি মানি আমার জন্যই বলিউডে সুযোগ পেয়েছিল সালমান।

উল্লেখ্য, বলিউডের তারকা নায়ক সালমান খান এখনো জ‍্যাকির সঙ্গে অনেক ভালো বন্ধুত্ব সম্পর্ক রয়েছে। আর বর্তমানে সালমান খান বলিউডে অনেক ভালো অবস্থানে রয়েছেন। শুধু ভারতে না বিদেশেও তার জনপ্রিয়তা ছড়িয়ে গেছে। আর বর্তমান সময়ে কোনো বড় কোনো ঘটনা ঘটলে তা জ‍্যাকিকে জানান এই তারকা নায়ক। এছাড়া প্রায় সময় তারা দুজন একে অপরকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা বিষয় শেয়ার করেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *