বর্তমান সরকার দেশের বিভিন্ন স্থানে অনেক উন্নায়নমূলক কাজ করে চলেছে। ঠিক একই ভাবে দেশের অনেক অসহায় মানুষদের বর্তমান সরকার নানা ভাবে সহায়তা করছেন। এর ধারাবাহিকতায় এবার বর্তমান সরকার দেশের অনেক স্থানে দরিদ্র মানুষদের ঘর তৈরি করে দিচ্ছেন। এই সহায়তা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক আনন্দিত হয়েছেন। তিনি আজ এই বিষয়ে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন।

ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান করতে পারা নিজের সবচেয়ে বড় আনন্দের বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান কর্মসূচির উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। এদিন দেশের ৪৯২ উপজেলার প্রায় ৭০ হাজার পরিবারকে পাকাঘর হস্তান্তর করেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ’আজকে আমার অত্যন্ত আনন্দের দিন। গৃহহীন পরিবারকে গৃহ দিতে পারছি, এটি আমার সবচেয়ে আনন্দের। আমার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের কথাই ভাবতেন। আমাদের পরিবারের লোকদের চেয়ে তিনি গরীব অসহায় মানুষদের নিয়ে বেশি ভাবতেন এবং কাজ করেছেন। এই গৃহ প্রদান কার্যক্রম তারই শুরু করা।’

এ সময় লাইভে যুক্ত ছিল খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলা, চাপাইনবাবগঞ্জ সদর, নীলফামারীর সৈয়দপুর ও হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলা। এছাড়াও দেশের সব উপজেলা অনলাইনে যুক্ত হয়।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় প্রায় নয় লাখ মানুষকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে পাকাঘর উপহার দেয়া হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ঘর পেল প্রায় ৭০ হাজার পরিবার। আগামী মাসে আরও ১ লাখ পরিবার বাড়ি পাবে। অনুষ্ঠানে আশ্রয়ন প্রকল্পের তৈরি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।

উল্লেখ্য, বর্তমান সরকার দীর্ঘদিন আগে থেকে বলে এসেছে দেশে দরিদ্র মানুষদের নানা ভাবে সহায়তা করবেন। সেই অনুযায়ী দেশের অনেক স্থানে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িছে বর্তমান সরকার। আর এই সহায়তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক আনন্দিত হয়েছেন।