দেশে আবারও করোনা ভাইরাসের বিস্থার লক্ষ করা যাচ্ছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন নতুন করে অনেকে এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে। এমনকি দেশের অনেক রাজনৈতিক নেতারা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আর এবার দেশে আরও কয়েকজন সংসদ সদস্য করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। মাত্র দুই দিনে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে।

দেশের আরও ৭ জন সংসদ সদস্য (এমপি) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দুই দিনে মোট ১৩ জন এমপির করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়া গেল। এদের মধ্যে একজন এমপি দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া দুজন মন্ত্রী, একজন প্রতিমন্ত্রী, একজন উপমন্ত্রী রয়েছেন। আর আছেন একজন সদ্য শপথ নেয়া সংসদ সদস্য।

রবিবার সন্ধ্যায় শুরু হওয়া জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশন উপলক্ষে এমপিদের করোনাভাইরাস পরীক্ষার আওতায় আনা হয়। এরপর দুই দফায় তাদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেল।

করোনা আক্রান্ত ৭ এমপি হলেন- পাবনা-৩ আসনের (চাটমোহর-ভাঙ্গুড়া-ফরিদপুর) সাংসদ মকবুল হোসেন, ঢাকা-১৩ আসনের সাদেক খান, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, কিশোরগঞ্জ-৩ আসনের মুজিবুল হক চুন্নু, বাগেরহাট-১ আসনের শেখ হেলাল উদ্দীন, লালমনিরহাট-১ আসনের মোতাহার হোসেন ও বাগেরহাট-৩ আসনের হাবিবুন নাহার। অন্যদিকে অনেক দিন ধরে করোনায় আক্রান্ত তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের নমুনা পরীক্ষার ফল আবারও পজিটিভ এসেছে।
আর এর আগের দিন করোনায় আক্রান্ত হন সংরক্ষিত নারী আসনের নাদিরা ইয়াসমিন জলি, তাহমিনা বেগম, ঢাকা-১০ আসনের শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনের নুরুজ্জামান বিশ্বাস, নওগাঁ-২ আসনের সংসদ সদস্য শহিদুজ্জামান সরকার এবং পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার।

দেশের প্রথম করোনা আক্রান্ত সংসদ সদস্য ছিলেন আওয়ামী লীগের শহিদুজ্জামান সরকার। গত ৩০ এপ্রিল তার করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরদিন ১ মে তাকে জানানো হয়, তিনি করোনা পজিটিভ। গত ১৬ মে তার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এবার তিনি দ্বিতীয়বারের মতো আক্রান্ত হলেন।

অন্যদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আওয়ামী লীগের নুরুজ্জামান বিশ্বাস ৭ অক্টোবর এমপি হিসেবে শপথ নেন। এবার প্রথমবারের মতো তার সংসদে যোগ দেয়ার কথা ছিল। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ’আমার শরীরে কোনো উপসর্গ নেই। তবুও করোনা পজিটিভ এসেছে। আমি সংসদ থেকে এ সংক্রান্ত মেসেজ পাওয়ার পরই আইসোলেশনে আছি।’

সূত্র: জাগো নিউজ

এদিকে, দেশে আবারও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে পারে বলছেন বিশেষজ্ঞরা। আর এ জন্য ইতিমধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে নানা রকম পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে দেশের বিভিন্ন স্থানে আইনশিঙ্খলা বাহিনী মাস্কের বিষয়ে গুরুত্ব দিচ্ছে। আর মাস্ক পরে কেউ না বের হলে তাদের জড়িমানা করা হচ্ছে। একই সাথে দেশের সকল মানুষকে অধিক সচেতন ভাবে চলাচল করার করার আহ্বন জানিয়েছে দেশের বিশেষজ্ঞরা।