দেশে করোনা ভাইরাস দেখা দেওয়ার পর থেকে রাজধানী ঢাকা শহরে সব থেকে বেশি মানুষ করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছে। আর রাজধানী ঢাকা শহরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ার সাথে সাথে প্রথম থেকে বিভিন্ন এলাকা লকডাউন করা হয়। তবে আবার সেই লকডাউন শিথিল করে দেওয়া হয় আর এরপর করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আবাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ জন্য আবারও ঢাকার বিভিন্ন এলাকা লকডাউন করার ঘোষণা আসছে। আর এবার রেড জোন ঘোষণা করার পর ওই এলাকার জন্য ছুটি দেওয়া হবে।


করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ মোকাবিলায় ঝুঁকিতে থাকা ঢাকা মহানগরীর কয়েকটি জায়গায় ছোট আকারে রেড জোন ঘোষণা করা হচ্ছে জানিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, ’তালিকা পেলেই আমরা ছুটি ঘোষণা করব।’ বুধবার (২৪ জুন) প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন। গত ২১ জুন মধ্যরাতে ১০ জেলার ২৭টি এলাকা ও পরের দিন ২২ জুন ৫ জেলার ১২ এলাকাকে রেড জোন হিসেবে তালিকাভুক্ত করে সেখানে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

সর্বশেষ মঙ্গলবার (২৩ জুন) দেশের ৪ জেলার ৭টি এলাকাকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়। করোনা আক্রান্ত সবচেয়ে বেশি ঢাকায় থাকলেও সেখানে এখনও রেড জোন ঘোষণা করা হয়নি। তবে পরীক্ষামূলকভাবে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারকে রেড জোন ঘোষণা করে সেখানে লকডাউন বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ঢাকায় রেড জোন ঘোষণার বিষয়ে জানতে চাইল জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ’ঢাকায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ অফিস রয়েছে। এখানে অনেক শিল্প-কারখানা আছে। আবার ম্যানেজমেন্টও ঠিক করতে হচ্ছে। আশা করছি, এখানেও বেশ কয়েকটি জায়গাতে ছোট ছোট আকারে রেড জোন ঘোষণা করা হবে। তালিকা পেলেই আমরা ছুটি ঘোষণা করব।’



এদিকে, রাজধানী ঢাকা শহরে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি এলাকা রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করে লকডাউন করা হয়েছে। তবে ঢাকা শহরের অন্যান্য এলাকায়ও দিন দিন করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। এ জন্য এই সকল এলাকা চিহ্নিত করা হচ্ছে আর এরপর এই সকল এলাকা রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করা হবে একই সাথে ওই সকল এলাকার মানুষের জন্য ছুটি ঘোষণা করা হবে।