চীনে সম্প্রতি যে নতুন করোনা ভাইরাস দেখা দিয়েছে তা নিয়ে বিশ্ববাসী এখন বেশ ভীতিকর অবস্থায় রয়েছে। এই ভাইরাস এখন বিশ্বের বেশ কিছু দেশে ছড়িয়েছে। এ কারণে বিশ্বের বেশ কিছু দেশ এরই মধ্যে চীনের সাথে সকল রকম যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে। এদিকে, সিঙ্গাপুরে বেশ কয়েকজন মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে সিঙ্গাপুর প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তাকে নিয়ে দেশে বেশ আলোচনা দেখা দিয়েছে। এবার এই বিষয়ে কথা বলেছেন ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।
সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন করোনাভাইরাস সংক্রমিত বাংলাদেশির চিকিৎসার সব দায়-দায়িত্ব সিঙ্গাপুর সরকার বহন করবে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে মহাখালীতে এক ব্রিফিংয়ে এ কথা জানিয়েছেন রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

তিনি বলেন, ’এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি।’

এসময় আইইডিসিআর পরিচালক করোনা ভাইরাসে ভীতি না হয়ে সাবধানতা অবলম্বন করার পরামর্শ দেন। তিনি জানান, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ হাজার ৫৫৪ জন। চীনের বাইরে ১২টি দেশে এই ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন কোনো দেশে এ রোগ শনাক্ত হয়নি।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি ওই বাংলাদেশি করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হন বলে নিশ্চিত করেছে সিঙ্গাপুরের বেডোক পলিক্লিনিকের চিকিৎসকরা। নিরাপত্তার স্বার্থে আক্রান্ত ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ করেনি বাংলাদেশ হাইকমিশন।

এদিকে, সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশি হাইকমিশনার গতকাল গনমাধ্যমের সাথে কথা বলেছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশি করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসার সকল দায়িত্ব গ্রহণ করেছে সিঙ্গাপুর সরকার। এই বাংলাদেশি যে রুমে থাকতেন সেখানে আরও আটজন থাকতেন। এ কারণে এই আটজনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এছাড়া এই বাংলাদেশি যে ডরমেটরিতে থাকতেন সেখানকার লোকদের আপাতত রুমে থাকার আহ্বান জানানো হয়েছে।