আসন্ন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে এখন ব্যস্ত সময় পার করছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলিগ ও বিএনপির নেতাকর্মীরা। এদিকে, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে রাজনৈতিক ব্যক্তিসহ বিভিন্ন লোক নানা রকম কথা বলছেন। এছাড়া এই দুই দলের নেতাকর্মীরা প্রাচারের জন্য ভোটারদের কাছে যাচ্ছেন। আসন্ন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোটার প্রার্থীরা ভোটারদের কাছে যেয়ে বিবিন্ন কথা বলছেন। তবে বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রচারে গিয়ে অনেক সমস্যায় পরছেন বলেন জানান বিএনপির প্রার্থীরা।
ঢাকা উত্তর সিটি করপোরশনের বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল অভিযোগ করে বলেছেন, প্রতিদিন নতুন নতুন পদ্ধতিতে তার প্রচার প্রচারণায় বাধা দেওয়া হচ্ছে। বুধবার সকালে রাজধানীর উত্তর বাড্ডা রহমাতুল্লাহ গার্মেন্টসের সামনে থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচারণা শুরুর পর তিনি এ অভিযোগ করেন।

তাবিথ বলেন, এতদিন বিএনপি প্রার্থীদের পোস্টার ছিড়ে ফেলা হতো। এখন মাইক কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। পোস্টার না লাগাতে হুমকি ধামকি দেওয়া হচ্ছে। হামলা করা হচ্ছে। অনেককে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। ইসির প্রতি আহবান
জানিয়ে তিনি বলেন, প্রচারে আর ১২ দিন বাকি আছে। এই সময় যেন সব প্রার্থীরা সমানভাবে প্রচারণা চালাতে পারে সে ব্যবস্থা করবেন।

মেয়র প্রার্থী বলেন, এই এলাকার জলবদ্ধতা ও সরু এলাকায় যানজট নিরসনে কাজ করব।
নারী শিশুসহ সকলের নিরাপত্তায় কাজ করব। খোলা জায়গায় হাঁটার ব্যবস্থা করা হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জলবায়ু বিষয়ক সহ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুন রায় চৌধুরী, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা সুলতানা আহমেদ, যুবদল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর হোসেনসহ বিএনপি ও তার অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, বিএনপির প্রার্থীরা প্রচারের শুরু থেকে বিভিন্ন অভিযোগ করে আসছেন। দলের নেতাকর্মীরা বলছেন, তাদেরকে প্রাচারে বিবিন্ন বাধা দেয়া হচ্ছে। এমনকি তাদের নেতাকর্মীরা মাঠে নামতে পারছে না। বিএনপির নেতাকর্মীরা বলেন, আমরা আসন্ন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের শেষ প্রর্যন্ত থাকবো। তবে বিএনপির নেতার আরও বলেন, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠ ভাবে হলে জয় আমাদের আসবে।