বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অনেক দিন ধরে কারাবন্দি রয়েছেন। বর্তমানে তিনি কারা হেফাজতে শাহবাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেন, জামিন পাওয়া আমার হক। বেগম জিয়া আরও বলেন, দেশের আইন অনুসারে অবশ্যই আমি জামিন লাভের যোগ্য। আমি তো কোনো অপরাধ করিনি। তাহলে কেন প্যারোলের প্রশ্ন আসবে?
২ সেপ্টেম্বর, বুধবার বিকেলে শাহবাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) খালেদা জিয়ার বরাত বিএনপির নেত্রী রুমিন ফারহানা এমপি এসব কথা বলেন।

এরআগে বিকেল ৩টার দিকে বিএনপি দলীয় ৪ এমপি কারাবন্দি দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে হাসপাতালে প্রবেশ করেন। তারা চারটার আগে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে আসেন। এই চার এমপি হলেন গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ, রুমিন ফারহানা, মোশাররফ হোসেন ও জাহিদুর রহমান।

এসময় সাংবাদিকদের ব্যারিস্টার বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা বলেন, ’খালেদা জিয়া তাঁদের জানিয়েছেন তিনি কোনো অপরাধ করেননি। যে মামলা, তাতে জামিন তাঁর অধিকার।

তিনি জানান, ’সার্বিকভাবে তাঁর (খালেদা জিয়া) শারীরিক অবস্থা ভীষণ খারাপ। বর্তমানে তার ব্লাড সুগার অনেক বেশি। এমনকি কোনো ওষুধেই নিয়ন্ত্রণে আসছে না। যে মানুষকে দেখেছি হেঁটে গাড়িতে উঠে আদালতে গিয়েছেন। তারপরে তাঁর শারীরিক যে অবস্থা, তার পুরো দায়দায়িত্ব সরকারের।’

বিএনপির আরেক সাংসদ মোশাররফ হোসেন জানান, নির্বাচিত হওয়ার পর এই প্রথম বার আমরা খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করতে পেরেছেন। তিনি আরও জানান, বেগম খালেদা জিয়া খুব অসুস্থ। বর্তমানে তার শরীর অবশ হয়ে আসার মতো হয়ে গেছে। তিনি ভালভাবে খেতেও পারছেন না। সরকারের কাছে তিনি জানতে চেয়েছেন, আমার জামিনযোগ্য মামলা হলেও কেন জামিন হচ্ছে না।