সচিবের কারণে ৩ ঘণ্টা ফেরি বিলম্বে শিক্ষার্থীর মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে বলে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যদি কেউ অন্যায় করে তার শাস্তি হতেই হবে।
সোমবার (২৯ জুলাই) সকালে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদক মণ্ডলীর বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) রাতে মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ী ১নং ফেরি ঘাটে এক সচিবের গাড়ির অপেক্ষায় ফেরি পার হতে তিনঘণ্টা অপেক্ষা বিলম্ব হয়। এতে ফেরি ঘাটে থাকা অ্যাম্বুলেন্সে ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী তিতাস ঘোষের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠে।

তিতাসের স্বজনরা জানায়, দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর রাত পৌনে ১১টার দিক নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের স্টিকার লাগানো সাদা রংয়ের নোহা মাইক্রোবাসটি আসার পর ফেরি ছাড়ে। ফেরিটি মাঝ নদীতে পৌঁছালে মস্তিস্কে প্রচুর রক্তক্ষরণে অ্যাম্বুলেন্সেই মৃত্যু হয় তিতাসের। পরে শিমুলিয়া ঘাট থেকে আবারও ফেরিতে কাঁঠালবাড়ি ঘাট পৌঁছে ওই পরিবারটি তিতাসের লাশ নিয়ে নড়াইলে ফিরে যায়।

তিতাসের স্বজনদের অভিযোগ, ঘাটের বিআইডব্লিউটিসি কর্মকর্তা, পুলিশ সবার কাছে অনুরোধ করার পরও ওই কর্মকর্তা না আসা পর্যন্ত কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে ফেরি ছাড়েনি।

তবে পুলিশ ও ঘাটে কর্তব্যরত বিআইডব্লিউটিসি কর্মকর্তাদের দাবি, তাদের কাছে ওই পরিবারের পক্ষ থেকে যখন রোগীর কথা জানানো হয় তখনই তাদের অ্যাম্বুলেন্সটি ফেরিতে লোড করে ১০ মিনিটের মধ্যেই ঘাট থেকে কুমিল্লা ফেরিটি শিমুলিয়ার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। আর সরকারি কর্মকর্তার জন্য খুব বেশি দেরি করেনি ফেরিটি।