আগে হাজিরা খাতায় ম্যানুয়ালি সই করতেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী। এখন এই নিয়ম বাতিল, চালু করা হয়েছে ডিজিটাল হাজিরা পদ্ধতি। এছাড়া এখন থেকে অফিস ফাঁকি দিলেই বেতন কর্তন করা হবে।

বুধবার (২৪ জুলাই) বুড়ো আঙুলের ছাপ দিয়ে ডিজিটাল এ হাজিরা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান। এখন থেকে অফিসে প্রবেশ ও বের হওয়ার সময় সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ডিজিটাল হাজিরায় বুড়ো আঙুলের ছাপ দিতে হবে। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের চত্বরে ১০টি ভবনে ডিজিটাল হাজিরার ব্যবস্থা থাকবে।

এ নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, আমরা এখন ডিজিটাল বাংলাদেশে বসবাস করছি। সব ক্ষেত্রেই ডিজিটালাইজেশন হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে ডিজিটাল হাজিরা চালু হলো। এটা নিঃসন্দেহে ভালো উদ্যোগ। সবাই সময় মতো অফিসে আসবেন, কাজ করবেন। আমরা কাজ চাই। আশা করি এর মাধ্যমে কাজের গতি আরও বাড়বে।

১ আগস্ট থেকে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সকালে অফিসে প্রবেশের সময় এবং ছুটি শেষে যাওয়ার সময় বাধ্যতামূলকভাবে ডিজিটাল হাজিরা দিতে হবে।

পরিকল্পনা বিভাগ সচিব নূরুল আমিন বলেন, সবাইকে ডিজিটাল হাজিরা দিতে হবে। সময় মতো কেউ অফিসে না আসলে বেতন কাটা হবে। প্রতিদিন সময় মতো অফিসে আসতে হবে। এর মাধ্যমে অফিস ফাঁকি দেওয়ার সুযোগ থাকে না। কারণ কর্মকর্তা-কর্মচারীর সব হাজিরার বিষয় রেকর্ড থাকবে।