ভুয়ো খবর রুখতে কড়া পদক্ষেপ করতে চলেছে বিশ্বের এক নম্বর সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুক। এতদিন নানা টেকনোলজি সংক্রান্ত খবরের ওয়েবসাইটে এই কথা দেখা যাচ্ছিল। কিন্তু এবার খোদ ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতাই জানিয়ে দিলেন ২০১৮-তে আম আদমির নিউজ ফিডে বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আসতে চলেছে।

এর মধ্যে সর্বাগ্রে থাকছে কারও হোমপেজে ভুয়ো খবরের আনাগোনা। শুক্রবার রাতে মার্ক জুকারবার্গ একটি পোস্টে ফেসবুকের একগুচ্ছ নয়া নীতির কথা ঘোষণা করেন। লেখেন, ’নতুন বছরে সাধারণ মানুষের নিউজ ফিডে কোনও বাণিজ্যিক সংস্থার বিজ্ঞাপন, খবর, ভিডিও- একটু কম দেখা যাবে। আগে যা ৫% দেখা যেত, সেটা এখন ৪% দেখা যাবে।’ অর্থাৎ, বন্ধুবান্ধব বা পরিবারের আপডেট নিউজ ফিডে বেশি করে দেখা যাবে আগের চেয়ে। মতামত প্রদানের বিষয়ে কোনওরকম নিষেধাজ্ঞা যাতে না থাকে, ফেসবুক সে বিষয়েও খেয়াল রাখবে৷

আর পরই তিনি এবছরের সবচেয়ে বড় ঘোষণাটি করেন। জানিয়ে দেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো খবরের জেরে প্রচুর মানুষের ভাবাবেগে আঘাত লেগেছে। আর তাই এখন থেকে ভুয়ো খবর রুখতে আরও কড়া নজরদারি চালাবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। কিন্তু এই কাজ যে সংস্থার একার পক্ষে সম্ভব নয়, সে কথাও স্বীকার করে নেন মার্ক। বলেন, কোন সংস্থার খবর সত্যি, আর কোন সংস্থার মিথ্যা- সেটা ঠিক করুক ফেসবুকের পাঠকরাই। ফেসবুক সংস্থা এই মহা দায়িত্ব একার কাঁধে নিতে পারবে না। তবে ফেসবুক অনলাইনে বেশ কয়েক দফা সমীক্ষা চালাবে এই বিষয়ে, স্পষ্ট করেছেন মার্ক জুকারবার্গ। মার্ক জানিয়েছেন, ভুয়ো তথ্য ’রিপোর্ট’ করার বিষয়টি বর্তমানে আরও সহজ করছে ফেসবুক৷ এই ধরনের খবর ছড়িয়ে পড়া আটকাতে ’থার্ড পার্টি ভেরিফিকেশন’ ছাড়াও সাহায্য নেওয়া হবে পেশাদার সাংবাদিকদের কাছ থেকেও৷ ভুয়ো খবর ছড়িয়ে তা থেকে অসদুপায়ে রোজগারের প্রচেষ্টাও বন্ধ করতে উদ্যোগী হচ্ছে ফেসবুক৷


বস্তুত, ভুয়ো খবর ছড়িয়ে দিতে ফেসবুকের জুড়ি মেলা ভার। একাধিক ভুয়ো ওয়েবসাইট তাদের ’প্রপাগান্ডা’ ছড়াতে সোশ্যল মিডিয়াকে হাতিয়ার করছে। এই জাতীয় খবরের সত্যতা যাচাই করে দেখছেন না অনেক শিক্ষিত মানুষও। মোবাইলে যা আসছে, ফরোয়ার্ড করে দিচ্ছেন অন্যদের। হাজার হাজার ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়ছে দেশে-বিদেশে। আর এভাবেই কতবার ’জন গণ মন’ রাষ্ট্রসংঘে সেরা জাতীয় সঙ্গীতের তকমা পেল, জনপ্রিয় কমিক চরিত্র ’মিস্টার বিন’ কতবার মারা গেলেন আর দিওয়ালির সন্ধ্যায় উজ্জ্বল ভারতের ছবি দেখা গেল নাসার স্পেস স্টেশন থেকে! সোশ্যাল মিডিয়াতেই গুগল-সহ প্রথম সারির সংস্থাগুলি ’কেয়ার, বিফোর ইউ শেয়ার’ নামে ক্যাম্পেন চালায়। বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠিত সংবাদমাধ্যমের তরফে সাধারণ মানুষের কাছে বারবার আবেদন জানানো হয়েছে, কোনও অজানা বা অল্প পরিচিত ওয়েবসাইটের খবরে বিশ্বাস করার আগে আর একবার ভাবান। আপনাকে বোকা বানানো হচ্ছে না তো? এবার এই সতর্কীকরণের কাজই আরও ব্যাপক আকারে চালাবে ফেসবুক।sangbadpratidin