ডাক্তারি একটি মহান পেশা। তবে বর্তমান সময়ে দেশে দেখা যায় কিছু সংখ্যক অসাধু ডাক্তার মানুষকে জিম্মি করে টাকা হাতিয়ে নেয়। দেশের অসহায় মানুষ চিকিৎসার জন্য ডাক্তার এর কাছে যেয়ে অনেক সমস্যায় পরে। এমনকি কিছু সংখ্যক অসাধু ডাক্তার মানুষকে মানুষ হিসেবে দেখে না। তাদের অহংকার দেমাগ এর কারণে মানুষ কিছু বলতে পারেনে। এ সকল অসাধু ডাক্তাররা মানুষের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। এবার স্বপ্না চক্রবর্তী দেশে ডাক্তারের কাছে সঠিক চিকিৎসা না পাওয়ায় তিনি কিছু কথা শেয়ার করলেন।
৪ বছর আগে মেজোবোন সম্পা’র একটা এবোরশন হয়েছিলো। তার কিছুদিন পর থেকেই পেটে তীব্র ব্যাথা। সময় সময় ব্যাথা ছড়িয়ে পড়তে থাকে শরীরের অন্যান্য জায়গায়। সিলেট শহরের সর্বোচ্চ খ্যাতিমান ডাক্তারদের দেখানো শেষ করে ঢাকায় নিয়ে আসি। ঢাকায়ও খ্যাতিমান হাসপাতালগুলোর অতি খ্যাতিমান ডাক্তারদের দরজায় দরজায় ঘুরি তাকে নিয়ে। ইসিজ, আলট্রাসনোগ্রাম, ব্লাড টেস্ট, ইউরিন টেস্ট, এমআরই কোনো টেস্ট বাদ দেওয়া হয় না.. কিছু কিছু টেস্ট আবার করানো হয় একের অধিক বার... সিলেটের টেস্ট ঢাকার ডাক্তার দেখবে না...ঢাকার ডাক্তার সিলেটের ডাক্তার দেখবে না...কত জটিলতা... কিন্তু কোনো একজন ডাক্তার কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারে না। একজন বলে কিডনি ইনফেকশন আরেকজন বলে একটা কিডনি ড্যামেজ হয়ে যাচ্ছে আবার একজন বলে কিডনিতে পাথর। অপারেশন করানো জরুরি।

এক ডাক্তার তো বলে তার জন্মগত টিবি...! কোনো লক্ষণ তাদের কাছে কোনো ইস্যু না...কিন্তু ব্যাথা দিন দিন বাড়তে থাকে... ব্যাংককর্মী হওয়ায় দিনের বেলায় কষ্ট সহ্য করে হাসিমুখে অফিস করলেও তীব্র ব্যাথায় নির্ঘুম কেটেছে অনেক রাত..সবশেষে বরকে নিয়ে গতমাসে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের ভেলুর যায়। ওখানকার সিএমএসি’র ডাক্তারদের পরীক্ষা-নিরীক্ষায় পাল্টে যায় সব হিসাব..কিডনি সংক্রান্ত কোনো রোগ তো তার নেইই বরং অন্য দশজনের চাইতে তার কিডনি অনেক ভালো। সমস্যা গাইনির। আলট্রাসনোতে দেখা তার পেটে দুইটা বাচ্চার ভ্রুণ..! ৪ বছর আগে এবোরশন হলেও ভেতরে পুরোপুরি পরিস্কার না হয়ে পেটেই ছিলো তারা...!

অথচ দেশের কতগুলো হাসপাতালে এতবার এত এত পরীক্ষা করানো হলো কোনো কিছুতেই ধরা পড়লো না???? একটা ডাক্তারেরও একটুও এ ব্যাপারে সন্দেহ হলো না??? গতকাল ভেলুরের সিমসি’তে অপারেশনের মাধ্যমে ভ্রুণ দুটি বের করা হয়েছে তার... অপারেশন পরবর্তী দুর্বলতা ছাড়া আর কোনো জটিলতাও নেই..! ভাবছি সুস্থভাবে তারা দেশে ফিরে আসলে নাম্বার ধরে ধরে ওইসব ডাক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করবো... সদোত্তর না পেলে আইনের আশ্রয় নেবো...! বোনটির জন্য আশীর্বাদ চাই.. বড় একটা বিপদ গেলো মাথার উপর দিয়ে..!

তবে দেশে অনেকেই ডাক্তারের কাছে গিয়ে সঠিক চিকিৎসা না পেয়ে শুধু টাকা দিয়ে আসেন। এ সকল অসাধু ডাক্তাররা শুধু মানুষের কাছ থেকে টাকা নিতেই চেম্বার খুলে বসে। তাদের সাথে কোন কথা বলা যায় না। কোন কিছু বলতে গেলেই তারা তাদের ক্ষমতার জোর দেখান। তবে দেশে এখনও ভালো ডাক্তার রয়েছে। যারা শুধু চিকিৎসা করেন মহান পেশা হিসেবে। তাদের কারণে এখনও দেশের অসহায় মানুষেরা সঠিক চিকিৎসা পাচ্ছে।