মায়ের সাথে আমার অনেক ছবি রয়েছে কিন্তু ছবিগুলো আমি আর দেখিনা! যখনি মোবাইলে বা অন্য কোথাও ছবিগুলো ভেসে উঠে, আমি দ্রুত স্ক্রল করে সরে যাই। মাকে দেখিনা গত হয়েছে প্রায় ৮৬১ দিন।
মাকে হারানোর পর আমার অনেক কিছুই ভোঁতা হয়ে গেছে! মা হারা সন্তান সম্পূর্ণ নিঃস্ব, এদের সব থেকেও কিছু থাকেনা। এই একটি জায়গাতে আপোষের সুযোগ নেই, নিতে পারেনা এই স্থান কেউ...

পুরো ফেসবুক জুড়ে মাকে নিয়ে কত লিখা, কত ছবি! আহা! মা, মা বলে কতদিন ডাকিনা.. পাশে বসে থেকে গল্প করা, খাবার খেয়েছি কিনা, বাসায় আসবো কখোন, আবার তর্ক জুড়ে দেয়া সবকিছুই হতো। ভালবাসি এসব কখনো বলা হয়নি। মাঝে মাঝে মেজাজ হারিয়ে চিৎকারও করতাম, কিন্তু ওই যে তিনি যে গর্ভধারিনী মা- শুধু মাফ করতেই শিখেছেন!

পাগলের মত ভালবাসতাম মাকে। তাঁকে হারানোর পর ৪০ দিন লেগেছে আমার স্থির হতে! আমার কষ্ট অন্য কোথাও নাহ, শুধু বারবার মনে হয় মাথাটায় হাত বুলিয়ে দেয়ার আপন মানুষটা নাই। আমার দুঃখে কাঁদবার মানুষটা নাই! মায়ের শরীরে একটা মা মা গন্ধ থাকে যেটি তাঁর নামাজের জায়নামাজ, ওড়না,কাপড় সবকিছুতে লেগে থাকে! আমার সেই গন্ধটা চাই, মায়ের ওড়না নিয়েছি সেই পবিত্র সুগন্ধি আতরের মত ঘ্রাণ আমি আর পাইনা! পৃথিবীর সবচেয়ে সফল মানুষও যদি আপনি হোন, তাতেই বা কি আসে যায়?

আপনার মায়ের আনন্দাশ্রু কই? নোনাজলে বারবার ভিজবে আপনার ত্বক ও মন! কাছে এসে বুকে টেনে সেই জল মুছবার মানুষটা কই?

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সম্পদশালী মানুষ সেই, যার বাবা মা বেঁচে থাকেন! সবচেয়ে দীন, হীন মানুষ মা, বাবা ছাড়া এতিমের মত চলতে থাকে, ঠিক মাঝি ছাড়া নৌকার মত। যে জান্নাত আপনার পাশে আছেন, তাঁদের প্রাণভরে ভালবাসুন, স্মৃতির ভান্ডার সমৃদ্ধ করুন। ৩৬৫ দিনতো বলেন না, বলার সুযোগও হয়না মা দিবসেই নয়তো বাবা, মা দুজনকেই বলেন "ভালবাসি"! সেটি না বলতে পারলে সেদিন বন্ধুদের পাশে না অথবা অন্য কোনদিন তাঁদের পাশে থাকুন। পছন্দের কিছু উপহার দিন, তাঁদের এটা অনুভব করতে দিন যে তাঁরা আপনার জন্য বিশেষ কেউ...

বিশ্বাস করেন এই সুযোগ একটি সময় থাকবে না..আপনার ঘরের বেহেশতকে অবহেলায়, উপেক্ষায় রেখেন না! জীবনে সকলেই একটি প্রয়োজনে আসে কিন্তু মা, বাবা আমাদের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে আসেন। বিশেষত যে মায়ের গর্ভে আপনার জন্ম, সেই মাকে প্রাণভরে ভালবাসুন। যারা হারিয়েছেন এই অমূল্য সম্পদ, তারা প্রার্থনা করুন, উত্তম কাজ করুন- তার প্রতিদান নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ আপনার পিতা মাতার কাছে পৌঁছে দেবেন।

পৃথিবীতে সবচেয়ে বঞ্চিত মানুষটার মোবাইলে মা, বাবা নামে কোনো নাম্বার সেইভ থাকে না! মাকে তো আর ডাকতে পারিনা, তাই সময় পেলে কবরস্থানে ছুটে যাই- মনে হয় মা আমাকে শুনছেন..! কবরের বেস্টনী ধরলে মনে হতে থাকে মাকে জড়িয়ে ধরে আছি। পৃথিবীর সবচেয়ে প্রিয় মানুষটা কিভাবে একা একা সেখানে ঘুমায়..?

ভাল থাকুন দুনিয়ার সকল মা, বাবা! ওপারের মা বাবারা ভাল থাকুন আরও বেশি।

ইফতেখায়রুল ইসলাম

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

লেখক: অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন), ওয়ারী।
সূত্র:বিডিমর্নিং