দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও ব্যালট পেপার না পেয়ে গাজীপুরের একটি কেন্দ্রে ভোটাররা বিক্ষোভ মিছিল করেছেন।
সকাল ৮টায় শুরু হয়েছে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। ভোট গ্রহণের আড়াইঘন্টার মধ্যেই শেষ হয়ে গেছে নগরীর ১৭নং ওয়ার্ডের মুগর খাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের ব্যালট পেপার।
জানা গেছে, সকাল ১০টার পর ওই কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেন আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের কর্মীরা। পরে তারা কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালট নিয়ে নৌকা মার্কায় সিল মারতে থাকেন। এতে ওই কেন্দ্রে ব্যালট পেপার শেষ হয়ে যায়।
এদিকে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও ব্যালট পেপার না পেয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন ভোটাররা। এ ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা চেষ্টা চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।
বিক্ষোভকারীদের দাবি, এই কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর পক্ষে জোর করে ভোট নেয়া হয়েছে। এজন্য ব্যালটের সংকট দেখা দিয়েছে। ভোটারদের অভিযোগ, তারা দুই ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও ভোট দিতে পারেননি। ফলে অনেকেই ফিরে গেছেন।
এদিকে ব্যালট শেষ হওয়ায় আরও কয়েকটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ বন্ধ রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।  ওইসব কেন্দ্রে প্রিজাইডিং কর্মকর্তারা জানিয়েছেন ব্যালট শেষ হয়ে গেছে। তাই ভোটগ্রহণ আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।
কোনাবাড়ীর গ্রেটম্যাট পাইমারি স্কুল ৬২ নম্বর ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ বন্ধ রয়েছে। এ কেন্দ্রে চারটি ভোটার বুথ রয়েছে। এ কেন্দ্রে বিএনপির কোনও পোলিং এজেন্ট দেখা যায়নি।
কোনাবাড়ীর আইডিয়া হাইস্কুল কেন্দ্রে ৬০ নম্বর কেন্দ্রের দু’টি বুথেও ভোটগ্রহণ বন্ধ রয়েছে। জানা গেছে, এই দুই বুথের পোলিং এজেন্টদের কাছ থেকে ব্যালট পেপার নিয়ে যাওয়ায় ভোটগ্রহণ বন্ধ রয়েছে।
somoyerkonthosor