মানুষের ভাগ্য কখন বদলে যাবে তা কেউ বলতে পারে না। এমনকি অনেক মানুষ তাদের ভাগ্য বদলাতে লটারি কিনে থাকেন। তবে সবার ভাগ্যে সেই লটারির অর্থ বাদে না। কিন্তু যদি ভাগ্য ভালো থাকে তবে একদিনেই জীবনের মোড় ঘুরে যেতে পারে। আর এবার এক ব্যক্তি পর পর দুইবার লটারি জিতে কোটিপতি বনে গেলেন। এই ভাগ্যবান ব্যক্তি লটারিতে বিপুল অর্থ পাওয়ার পর গণমাধ্যমের সামনে আসেন আর তার অনুভতি প্রকাশ করেন।


ভাগ্য বটে মার্ক ক্লার্কের। তা না হলে দু–দুবার কেউ লটারি জেতে। তাও আবার কমসম নয়, একেবারে ৪০ লাখ ডলার করে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৩৪ কোটি টাকার মতো। অর্থাৎ দুবারে মার্ক জিতেছেন প্রায় ৬৮ কোটি টাকা। যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যের সাউথ রকউডের বাসিন্দা মার্ক ক্লার্ক। আড়াই বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো লটারি জিতে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি অঙ্গরাজ্যের ইনস্ট্যান্ট লটারিতে অংশ নেন মার্ক। স্টোরে বসে লটারির টিকিটের গোপন নম্বরটা প্রয়াত বাবার দেওয়া একটা কয়েন দিয়ে ঘষেন তিনি, পেয়ে যান ৪০ লাখ ডলার। বাবার স্মৃতি এই কয়েনটাই তাঁর ভাগ্য বদলে দিয়েছে বলে মনে করেন মার্ক।

এর আগে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে মিলিয়নিয়ারস ইনস্ট্যান্ট গেম খেলেন মার্ক। সেবারও ৪০ লাখ ডলার লটারি জিতেছিলেন তিনি। ৫০ বছর বয়সী মার্ক গুড নিউজ নেটওয়ার্ককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, লাখো ডলার জেতার কথা তো একবারই ভাবা যায় না, সেখানে দুবার লটারি জেতা তো অকল্পনীয়।

মার্ক বলেন, ’প্রথম জয়ের পর আমি আমার চাকরি থেকে অবসর নিয়ে নিই। মাছ ধরেই সময় কাটিয়েছি। আমার বাবা আর আমি সব সময় একসঙ্গে মাছ ধরতাম। দুর্দান্ত সব স্মৃতি আছে আমাদের। এবার আমি আমার ছেলে ও পরিবারের সঙ্গে মাছ ধরতে যাব। সময়টা উপভোগ করব।’

এই ব্যক্তি আরও বলেন আবার জীবনে অনেক উত্থান-পতন হয়েছে। আর এই সময় এসে এমন ঘটনা আমর কাছে বেশ অদ্ভুত লাগছে বলেন তিনি। আর আমার মনের কথা কাউকে বুঝাতে পারবো না। তবে তিনি মনে করেন মানুষের ভাগ্য বদলানোর জন্য একটি দিনই যথেষ্ঠ।