করোনা ভাইরাস বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের মতো দক্ষিণ এশিয়ার দেশ গুলোতে ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়ছে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশ গুলোর মধ্যে ভারতে বর্তমানে সব থেকে বেশি করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছে। এই দেশটিতে লাফিয়ে লাফিয়ে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে চলেছে। দিন দিন দেশটিতে করোনার ভাইরাসের সংক্রমণের সাথে সাথে প্রাণ যাওয়ার সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর সংক্রমণের দিক দিয়ে দেশটি বিশ্বের অন্যান্য দেশকে পিছনে ফেলে সামনের কাতারে চলে আসছে। এমনকি বিশ্বে প্রথম যে দেশ গুলোতে করোনা ভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়ায় সে সকল দেশকেও পিছনে ফেলে সামনে কাতারে চলে এসেছে ভারত।

ভারতে ফের সর্বোচ্চ হারে সংক্রমণ। শুক্রবারের হিসেবে শেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হলেন ৯ হাজার ৮৮৭ জন, যার ফলে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাড়াল ২ লাখ ৩৬ হাজার ৬৫৭ জন।

শেষ ২৪ ঘণ্টায় মৃ’’ত্যু হয়েছে ২৯৪ জনের। ফলে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় মৃ’’তের সংখ্যা দাঁড়াল ৬ হাজার ৬৪২ জন। মোট আক্রান্তের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ১৪ হাজার ৭৩ জন। অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ১ লাখ ১৫ হাজার ৯৪২ টি ও মৃ’’ত ৬ হাজার ৬৪২ জন।

একসময় করোনার ভরকেন্দ্র হয়ে উঠেছিল ইতালি। এবার সংক্রমণের বিচারে সেই ইতালিকেও পেছনে ফেলে দিল ভারত। ইতালিকেও টপকে করোনায় ষষ্ঠ স্থানে উঠে এল ভারত। আগের সপ্তাহে চীনকে করোনা আক্রান্তের বিচারে পার করেছিল ভারত।
২৯ মে থেকে প্রত্যেকদিন ৮ হাজার বা তার বেশি নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সামনে আসছে। ২ জুন ২ লাখ পেরিয়ে যায় আক্রান্তের সংখ্যা। এখন প্রত্যেক ১৫ দিনে দ্বিগুণ হচ্ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সূত্র: কলকাতা২৪


এদিকে, দেশটিতে দিন দিন যে পরিমাণ মানুষ করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হচ্ছে তা নিয়ে দেশটির বিশেষজ্ঞরা অনেক চিন্তায় রয়েছে। সামনের দিন গুলোতে দেশটিতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আরও বৃদ্ধি পেতে পারে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এমনকি বিশ্বের অন্যান্য দেশকে ছাড়িয়ে একেবারে সামনের কাতারে চলে আসতে পারে। ইতিমধ্যে দেশটি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে ইরান, জার্মানি ও ফ্রান্সকেও পেছনে ফেলে দিয়েছে। আর সামনের সপ্তাহে দেশটি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে স্পেনকেও পেছনে ফেলতে পারে মনে করছে দেশটির বিশেষজ্ঞরা। এমনকি এই চলতি মাসের শেষের দিকে যুক্তরাজ্যকেও পেরিয়ে পারে দেশটি।