ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ভোট গণনা শেষে প্রাথমিক ফলাফল অনুযায়ী বিপুল ব্যবধানে এগিয়ে আছে ক্ষমতাসীন বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। আবারও ক্ষমতায় আসছে মোদির দল। প্রাথমিকভাবে ভোটের ফলাফল প্রায় স্পষ্ট। এমন মুহূর্তে বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
সর্বশেষ ফলাফল অনুযায়ী, নির্বাচনে বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট এগিয়ে আছে ৩৪৬ আসনে, কংগ্রেস ৮৯ এবং অন্যান্য দল ১০৭ আসনে।

ভারতে কোনো দলকে সরকার গঠন করতে হলে ২৭২টি আসনে জয়ী হতে হবে। বেসরকারি ফলাফলে ইতোমধ্যে এই সংখ্যা পার করেছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। এখন শুধু আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণার অপেক্ষা। সব কেন্দ্রের ভোট গণনা শেষে আজ ফলাফল ঘোষণা করা হবে।


এদিকে, প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশের পরেই এক টুইট বার্তায় বিজয়ীদের অভিনন্দন জানান মমতা। দ্বিতীয় বারের মতো বড় ধরনের জয় পেল বিজেপি। এক টুইট বার্তায় মমতা বলেন, বিজয়ীদের অভিনন্দন। তবে সব হেরে যাওয়াই ব্যর্থতা নয় বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এবারের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছে বিজেপি। লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের ৪২টি আসনের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস এগিয়ে আছে ২৩ আসনে, বিজেপি ১৮ এবং কংগ্রেস ১ আসন।



বিজেপির ফলাফলেই বোঝা যাচ্ছে, পশ্চিমবঙ্গে নিজেদের পায়ের তলায় মাটি শক্ত করেছে তারা। ভোটের আগে পশ্চিমবঙ্গে বেশি করে সভা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। তার ফল হাতেনাতেই পেয়েছে বিজেপি।


২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে এই রাজ্যে মাত্র দুটি আসনে জিতেছিল বিজেপি। তখন থেকেই এ রাজ্যে জোরদার প্রচারণা চালিয়ে আসছে তারা। গত দু\’বছরে রাজ্য সরকারের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে বিজেপি। কিন্তু তারপরও সেখানে শক্ত অবস্থান তৈরি করে উত্থানের ইঙ্গিত দিল মোদির দল।

নির্বাচনী প্রচারণায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, তার দল পশ্চিমবঙ্গে ৪২ এ ৪২ পাবে। অর্থাৎ ৪২ আসনের সবগুলোই তৃণমূল কংগ্রেসের ঘরে যাওয়ার কথা থাকলেও বিজেপি তা হতে দেয়নি। সেখানে সামান্য কিছু ব্যবধান রয়েছে তৃণমূল আর বিজেপির মধ্যে। বিজেপি অল্প কিছু আসনে এগিয়ে থাকলেই মমতার পায়ের নিচের ভীত নড়বড়ে হয়ে যেত।

তবে এমন অবস্থার মধ্যেও ধৈর্য হারাতে রাজি নন মমতা। তিনি বলেন, আমাদের সব কিছু পর্যবেক্ষণ করতে হবে। এরপরই আমরা আপনাদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলব। ভোট গণনা সম্পূর্ণভাবে শেষ হতে দিন।