বাংলাদেশের চলচ্চিত্র জগতের একটা সময় ব্যাপক নাম-ডাক ছিল। আগে দেশে সিনেমা হল গুলোতে অনেক মানুষ যেত। এমনকি দেশের সিনামা চলতো দেশের পরিচালকের নামে। পরিচালকদের নাম শুনলেই দর্শকরা সিনেমা হলে ছুটে যেত। তবে বর্তমানে দেশের সিনেমা হল গুলোর চিত্র একেবারে অন্য রকম হয়ে গেছে। আর বর্তমানে পরিচালকের নাম নয় শিল্পিদের নামে সিনেমা হলে যায় দর্শকরা।

অন্যদিকে দিনে দিনে পরিচালকদের সম্মান তলানিতে ঠেকেছে। পরিচালককে শিল্পীদের দ্বারস্থ হতে দেখা গিয়েছে। এ নিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন দেশীয় চলচ্চিত্রের সিনিয়র শিল্পীরা।

পরিচালকদের সম্মানবোধ অনেকটাই লোপ পেয়েছে। এমন কথার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন দাপুটে অভিনেতা সাদেক বাচ্চু। তিনি আক্ষেপ করে গণমাধ্যমকে বলেন, পরিচালকের যে মেধা, স্বাধীনতা এটা এখন প্রায় উঠে গেছে। বর্তমান সময়ে অনেক মেধাসম্পন্ন নির্মাতা আসেন। তাদের প্রথমই একটা বলিউড, তামিল তেলেগু ধরিয়ে দিয়ে নকল করতে বলা হয়। আমি মনে করে এসব নির্মাতাদের মৌলিক সিনেমা করতে বলা উচিত। এদের স্বাধীনভাবে ছেড়ে দেয়া উচিত। তবেই এ দেশে আবার ভালো নির্মাতা তৈরি হবে, ভালো সিনেমা নির্মিত হবে।’ সূত্র:রাইজিংবিডি

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সময়ে আমাদের পরিচালকদের কথা মনে করলে কান্নায় বুক ফেটে যায়। এখন পরিচালকদের সম্মানের আসনে খুব একটা দেখা যায় না। একটা সময় পরিচালক সেটে প্রবেশ করলেই শিল্পীরা সম্মানে মাথা নিচু করে থাকতো। খান আতাউর রহমান মেকআপ রুমে ঢুকলে মনে হতো যে, রাজ্জাক ভাইকে কারেন্ট শক করেছে। সঙ্গে সঙ্গে উঠে দাঁড়িয়েছেন। এখন মেকআপ রুমে ঢুকেই দেখবেন হিরো-হিরোইনরা পা তুলে চেয়ারে বসে আছেন।

উল্লেখ্য, ঢাকাই চলচ্চিত্রের এই জনপ্রিয় অভিনেতা সেই আশির দশকের সিনেমায় অভিনয় শুরু করেন। এরপর থেকে এই অভিনেতা একাধিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন। তার সিনেমার সংখ্যা প্রায় ৪১০ টির অধিক। আর বর্তমানে এই অভিনেতা অনেক সুনামের সাথে অভিনয় করে যাচ্ছে। এছাড়া তিনি মঞ্চে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন। এই অভিনেতা তার অভিনয় জগতে দেশের অসংখ্য গুণী অভিনেতা-অভিনেত্রীদের সাথে কাজ করেছেন।