নাসিরুদ্দিন শাহ ভারতের ব্যাপক জনপ্রিয় অভিনেতা। এই জনপ্রিয় অভিনেতা তার দক্ষ অভিনয়ের মাধ্যমে বেশ কিছু পুরস্কার অর্জন করেছেন। এছাড়া এই জনপ্রিয় অভিনেতা ভারতে বেশ কিছু সম্মাননা পদ্মভূষণ পদকে ভূষিত হয়েছেন। অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ সাধারণত সব সময় খোলাখুলি কথা বলে থাকেন। এই জনপ্রিয় অভিনেতা এবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সম্পর্কে কথা বলেছেন। এর মাধ্যমে নাসিরুদ্দিন শাহ বেশ আলোচনায় এসেছেন।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে ছাত্র ছিলেন না বলেই বোধহয় শিক্ষার্থীদের প্রতি কোনো সহানুভূতি নেই, বললেন কিংবদন্তি অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ।
সোমবার মুম্বাইয়ের একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন তিনি।
স্পষ্ট ভাষায় বলেন, ’’জানি না আমার বার্থ সার্টিফিকেট আছে কি না। এত বছর এ দেশে কাজ করছি। পরিবারের বাকিরা কেউ পুলিশে, কেউ প্রশাসনে, কেউ সেনাবাহিনীতে কাজ করে এসেছে। আজ যদি ভারতীয়ত্বের প্রমাণ দিতে হয়, তাতে উদ্বেগ নয়, ক্রোধই জন্মায়। আমি উদ্বিগ্ন নই, আমি ক্রুদ্ধ।’’
প্রতিবাদ আন্দোলনের প্রসঙ্গ উঠলে যোগ করেন, মোদি সরকারের অন্যতম বৈশিষ্ট্যই হলো শিক্ষার্থী ও বিদ্বৎসমাজের প্রতি বিদ্বেষ।
’’তারা নিজেরা কখনো ছাত্র ছিলেন না, বিদ্যাচর্চায় আগ্রহ দেখাননি কখনো, তার জন্যই হয়তো এই বিদ্বেষ। ছাত্ররা হলো সেই গোষ্ঠী, যারা চিন্তা করে দেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে। বড় হলে তাদের জন্য কী ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে, এটা তাদের ভাবতে হয়। প্রধানমন্ত্রী সেই গোষ্ঠীর অংশ ছিলেন না তাই তাদের প্রতি তার সহানুভূতিও নেই। রাষ্ট্রবিজ্ঞানের ডিগ্রির কথা সামনে আসার আগে উনি নিজে কিন্তু বলতেন আমি পড়াশোনাই করিনি।’’

উল্লেখ্য, বর্তমানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সরকারের কাজে বেশ সমালোচনা দেখা দিয়েছে। অনেকে বলেন, মোদি সরকার বর্তমানে ভারতে বিভিন্ন নতুন নিয়ম করে সাধারণ মানুষকে সমস্যায় ফেলছেন। তাই এবার অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সরকারের সম্পর্কে মুখ খুলেছেন। অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ এর কথায় ভারতে বেশ আলোচনা দেখা দিয়েছে।