ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় খল অভিনেতা খলিলুর রহমান বাবর (৬৭) আর নেই।
সোমবার (২৬ আগস্ট) সকাল ৯টা ১০ মিনিটে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেছেন।


মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী সুলতানা রহমান, ছেলে রিয়াদুর রহমান এবং মেয়ে ওমাইনা রহমানকে রেখে গেছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে প্রয়াত এ অভিনেতার ছেলে রিয়াদুর রহমান বলেন, বাবার শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছিল। বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) রাতে স্ট্রোক করলে বাবাকে স্কয়ারে ভর্তি করা হয়। সোমবার সকাল ৯টা ১০ মিনিটে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, বাদ যোহর এফডিসিতে বাবার জানাযা শেষে কলাবাগানের বাসায় নেয়া হবে। তারপর তাঁকে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবি কবরস্থানে দাফন করা হবে।

জনপ্রিয় খল অভিনেতা বাবর দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। এর আগে তাকে গ্যাংরিনের (পায়ে পচন) জন্য ডাক্তারের পরামর্শে তাঁর বাঁ পায়ের তিনটি আঙুল ও সর্বশেষ বাঁ পায়ের হাঁটু থেকে নিচের অংশ কেটে ফেলা হয়।

খলিলুর রহমান বাবর ঢাকার গেন্ডারিয়ায় ১৯৫২ সালের ৩রা ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একাধারে অভিনেতা, পরিচালক ও প্রযোজক ছিলেন। তিনি চলচ্চিত্রে নায়ক হিসেবেই যাত্রা শুরু করেন। গুণী পরিচালক আমজাদ হোসেনের বাংলার মুখ ছবি দিয়ে তিনি চলচ্চিত্রে প্রবেশ করেন। এরপর তিনি খলনায়ক হিসেবে নায়করাজ রাজ্জাক প্রযোজিত ও জহিরুল হক পরিচালিত রংবাজ চলচ্চিত্র দিয়ে যাত্রা শুরু করেন। তিনি অভিনয় জীবেন তিন শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।


ঢাকাই এই জনপ্রিয় খল অভিনেতা প্রযোজক ও পরিচালক হিসেবেও নিজের মুন্সয়ানা দেখিয়েছেন। দয়াবান, দাগী, দাদাভাইসহ বেশ কিছু ব্যবসাসফল ছবি পরিচালনা ও প্রযোজনা করেছেন তিনি।