দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রায় প্রতিদিনই অনৈতিক কান্ডের ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। আর এই সকল অনৈতিক কান্ডের বেশিভাগ শিকার হয় স্কুল ছাত্রীরা। কিছু খারাপ চরিত্রের পুরুষ সুযোগ পেলেই নারীদের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক করে। এবার তেমনি একটি অভিযোগ উঠে এসেছে মা‌নিকগ‌ঞ্জের সাটুরিয়া এলাকা থেকে। অভিযোগ উঠেছে এক স্কুল ছাত্রী বোনের বাড়িতে গিয়ে অনৈতিক কান্ডের শিকার হয়।

মা‌নিকগ‌ঞ্জের সাটুরিয়ায় এক স্কুলছাত্রী অনৈতিক কান্ডের শিকার হয়েছে। ওই ছাত্রীর বা‌ড়ি ব‌রিশা‌লের গৌরনদী উপ‌জেলায়। তি‌নি গৌরনদী‌র এক‌টি স্কু‌লের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। তিন‌ দিন আগে ওই ছাত্রী উপ‌জেলার পা‌তিলাপাড়া এলাকায় বো‌নের বা‌ড়ি‌তে বেড়া‌তে আসে। রোববার সন্ধ‌্যায় অনৈতিক কান্ডের অভিযোগে ওই ছাত্রীর বোন সাটু‌রিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের ক‌রে‌ছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সাটুরিয়া উপজেলার বরাইদ ইউনিয়নের পাতিলাপাড়া গ্রামে ওই ছাত্রী বোনের বাড়িতে বেড়াতে আসে তিন দিন আগে। শনিবার রাতে তিনি প্রকৃতির ডাকে বের হন। এ সময় ওঁত পেতে থাকা পাতিলাপাড়া গ্রামের মো: জামাল মিয়ার ছেলে পাভেল মিয়া ওরফে আলামিন তাকে মুখ বেঁ/ধে নিয়ে তার শয়ন কক্ষে আটকিয়ে অনৈতিক সম্পর্ক করে। একপর্যায়ে ছাত্রীর চিৎকারে বোন সুমি পাভেল মিয়ার ঘর থেকে মুখ বাঁধা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেন।

এ বিষয়টি নিয়ে এলাকার কয়েকজন মাতাব্বররা রোববার ৫০ হাজার টাকা দিয়ে আপস-মীমাংশার চেষ্টা করেন। তবে মামলার তদন্তের স্বার্থে মাতাব্বরদের নাম প্রকাশ করতে অনীহা প্রকাশ করেছে পুলিশ।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাটুরিয়া থানার পু‌লিশ প‌রিদর্শক (তদন্ত) মো: হাবিবুর রহমান জানান, অভিযুক্ত পাভেল মিয়া‌কে ধরতে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে।

এদিকে, এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর মা‌নিকগ‌ঞ্জের সাটুরিয়া ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা শুরু হয়েছে। এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চান ওই এলাকাবাসী। আর অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করার জন্য চেষ্টা করছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এছাড়া ভুক্তভোগী স্কুল ছাত্রীর কাছে আরও অনেক বিষয় সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।